৬৪ জেলার সাংবাদিকদের জাতীয় কাউন্সিল ২০১৮ সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদ।॥ ‘গণমাধ্যম সম্মাননা’ পেলেন কবি-সাংবাদিক সালেম সুলেরী

প্রকাশ: ২০১৮-১১-১১ ১৯:২৭:০৯ 756 Views

Spread the love

 রিয়া আক্তার রিয়া কর্ণফুলী সংবাদ 

ঢাকা মহানগর

শনিবার ১০ নভেম্বর ২০১৮ ইংরেজি সকাল ১০ টায় । জাতীয় প্রেসক্লাবের ২য় তলায় ,৬৪ জেলার সাংবাদিকদের জাতীয় কাউন্সিল ২০১৮ সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদ।॥ ‘গণমাধ্যম সম্মাননা’ পেলেন কবি-সাংবাদিক সালেম সুলেরী

তিল ধারণের জায়গা ছিলো না প্রেসক্লাব ভিআইপি মিলনায়তনে। সারাদেশের ৬৪ জেলা থেকেই অংশ নিয়েছিলেন সাংবাদিকবৃন্দ। জাতীয় কাউন্সিলের আয়োজন করেছিলো ‘সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদ’। প্রধান অতিথি ছিলেন প্রেস ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক শাহ আলমগীর। সম্মানিত অতিথি ছিলেন কবি-কথাকার-সাংবাদিক সালেম সুলেরী। অ্যামেরিকা-খ্যাত নিউইয়র্ক প্রেসক্লাবের তিনি কার্যকরী সদস্য। লেখক-সংস্কৃতিসেবীদের আন্তর্জাতিক সংগঠন তিনবাংলা’র গ্লোবাল প্রেসিডেন্টও। আয়োজকদের আহ্বানে দেশ-বিদেশের সাংবাদিকতা বিষয়ে দীর্ঘ বক্তব্য দেন। পরে জনাব সুলেরীকে পেশাগত উৎকর্ষের জন্যে সম্মানিত করা হয়। ‘গণমাধ্যম সম্মাননা’ তুলে দেন প্রধান অতিথি ও সংগঠন নেতৃবর্গ।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নবনির্বাচিত সভাপতি সামসুল আলম নিক্সন। বিশেষ আলোচক ছিলেন সাংবাদিক-সংগঠক আলী নিয়ামত, ব্যারিস্টার হুমায়ূন কবির পল্লব. নূরুল হুদা, ফয়েজ আহমদ প্রমুখ। সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক শাহ আলম শাহী। প্রধান আলোচক ছিলেন সংগঠনের আহ্বায়ক কলিম এম জায়েদী মিতু। বক্তব্যের শুরুতে বলেন, আমার হৃদয় আজ শতভাগ ভরা। প্রথমত ‘সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদে’র জাতীয় কাউন্সিল সম্পন্ন হলো। দ্বিতীয়ত সাংবাদিকতায় যাকে ‘গুরু’ মানি তাঁর বিরল উপস্থিতি। কবি-সাংবাদিক সালেম সুলেরী’র ‘সাদাকালো’ ম্যাগাজিনে আমার কাজের শুরু। বিশ্ববাতায়নের সেই প্রিয় মানুষকে পেয়ে আমরা সবাই আজ ধন্য। সালেম সুলেরীকে সাংবাদিক নেতা কলিম এম জায়েদী গুরু বলে সম্বোধন করেন। চলচ্চিত্র পরিচালক থেকে সাংবাদিক হয়ে উঠা ওনার সহযোগিতা মনে করেন ।
প্রধান অতিথি ‘পিআইবি’ মহাপরিচালক শাহ আলমগীর দীর্ঘ বক্তব্য দেন। বলেন, সাংবাদিকতা একটি সেবামূলক পেশা। আমি ছোট-বড়ো অনেক মিডিয়া প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছি। আগে মিডিয়ায় যে অর্থনৈতিক স্বাবলম্বিতা দেখেছি তা আজ নেই। অতএব ‘নেয়ার চেয়ে দেয়ার কথা’ ভেবেই সাংবাদিকতায় সম্পৃক্ত হোন।
অনুষ্ঠানে সম্মাাননাপ্রাপ্ত বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি-সাংবাদিক সালেম সুলেরী। বক্তব্যে বলেন, সাংবাদিকদের জাতীয়ভিত্তিক সংগঠন আগেও ছিলো। ‘সাংবাদিক সমিতি’র নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সফিউদ্দিন আহমদ। এরপর ‘জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র কার্যক্রমও দেখেছি। এখন ‘সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদ’ নতুন সাংবাদিকতার বাতাবরণ তৈরি করছে। এই মহতী উদ্যোগের সাথে ঘনীভূত হচ্ছে বিশেষ আবেগ। কারণ আমি নিজেও মফস্বলে থেকে সাংবাদিকতার সূচনা ঘটাই। সত্তর দশকে ‘দৈনিক দেশ’ ও সাপ্তাহিক ‘মুক্তিবাণী’র প্রতিনিধি ছিলাম। বৃহত্তর রংপুরের নীলফামারী জেলার ডোমারে কাজ করেছি। পরবর্তীতে ঢাকায় জাতীয় সংবাদপত্রে ছোট থেকে বড়ো পদে। এজন্যে গ্রাম-প্রধান সাংবাদিকদের সীমাবদ্ধতা, চাওয়া-পাওয়া বিষয়ে ওয়াকিবহাল। তিনি বলেন, বিশ্বের রাজধানী নিউইয়র্কেও সাংবাদিকদের সংগ্রাম করতে হয়। সাংবাদিকতা এমন একটি পেশা যা অক্ষয়, চিরজীবী। কারণ সংবাদ-পরিবেশনা প্রিন্ট, অনলাইন বা অ্যাপস-এ হতে পারে। কিন্তু সংবাদগুলো সংগঠিত করতে সৃষ্টিশীল সাংবাদিকের বিকল্প নেই।
সভাপতির আহ্বানে আধুনিক সাংবাদিকতার কলা-কৌশলও মেলে ধরেন। জনাব সুলেরী বলেন, আগে জানুন আপনি কতোটা সাংবাদিক। প্রতিবেদন রচনায় ‘ফাইভ ডব্লিউ এইচ’-এ অভ্যস্ত হওয়া জরুরী। অর্থাৎ ৬টি প্রশ্নের জবাব থাকতে হবে লেখনীতে। এরপর বাক্যে সিঁড়ি-বৈশিষ্ট বা সমানুপাতিক হারের শব্দ। সিঙ্গেল ডিজিট বা সর্ব্বোচ্চ ৯ শব্দে বাক্য-গঠন প্রচেষ্টা। তিনি বলেন, জানাশোনার ক্ষেত্রে সাংবাদিককে ওজনদার হতে হবে। সর্বত্র ফুটিয়ে তুলতে হবে ‘শালীন স্মার্টনেস’।
অনুষ্ঠান-সভাপতি সামসুল আলম নিক্সন বলেন, আমরা চলমান। পেশাগত উন্নয়নের পাশাপাশি অধিকার প্রতিষ্ঠাতেও সংগঠন বদ্ধপরিকর। উল্লেখ্য, কাউন্সিলের মাধ্যমে তিনি সংগঠনের সভাপতি নির্বাচিত হন। সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদের সম্পাদক হন জালালুদ্দিন জুয়েল। পূর্ণাঙ্গ কমিটির ঘোষণা করেন ব্যারিস্টার হুমায়ূন কবির পল্লব। শেষে সংগঠনের পক্ষে গণমাধ্যম সম্মাননা হস্তান্তরিত হয়। প্রধান অতিথি সম্মাননা তুলে দেন কবি-সাংবাদিক সালেম সুলেরী’কে।
পেশাদার সাংবাদিকদের জাতীয় সংগঠন সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদ’র জাতীয় কাউন্সি ২০১৮ এল এলাকাভিত্তিক নেতৃত্বে ছিলেন : হেলাল সাজওয়াল, রুহুল আমিন, নূরুল হুদা, রিতা আক্তার রিয়া, শফিকুল সাদ্দাম, আনা ইসলাম, সোহাগী, ফারুক হোসেন, আবু তাহের, আনোয়ারুল আলম, সাহিন ইসলাম, কামালউদ্দিন জ্যাকি, খালেক নান্নু, সাবিরুল তালিম, জাহিদুল ইমলাম, সিরাজুল ইমলাম, সালাহ উদ্দীন কাদের, তাসলিমা, সম্পদ খান, সাদিকুল ইসলাম খান, মশিউর রহমান, রেজিয়া সুলতানা, রাবেয়া আক্তার, শাপলা রহমান, মোহাম্মদ মোহসীন, মোতারিম বিল্লাহ, মাসুদ শিপন, শামসুল আলম, জামাল হোসেন, রবিন হোসেন, আনওয়ারুল আলম, মেহেদি হোসেন, জাহিদুল ইসলাম, তাহসিনা তনু, সরকার বিরাজ কবির, বিনয় কর্মকার, রাজু রায়হান, হাফিজুর রহমান, জাকির হোসেন, কামরুল নেছারী, সিরাজ আকন, ফরিদা শিল্পী, সালাউদ্দিন কাদের, শাহারুল রকি, খন্দকার মাসুদ জামান, ফজলুর রহমান প্রমুখ।

ট্যাগ :



চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মোঃ আব্দুল আজিজ
ডিএমডি : মোঃ আরমান তারেক

বার্তা কক্ষ :

ঢাকা অফিস : ৩৭৩, দিলু রোড, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।
চট্টগ্রাম অফিস : সায়মা আবুল স্কয়ার,বড়পুল,হালিশহর,চট্টগ্রাম।
ফোন : ০১৩০৬৭৩৪২৪০
মেইল : channelkornofuli.org@gmail.com