“থানা থেকে বের করে দিয়েছে পুলিশ” শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ প্রসঙ্গে।

প্রকাশ: ২০১৮-১২-২৩ ০৪:৫৭:৪০ 126 Views

বিজ্ঞপ্তি :

বাঁশখালী আসন হতে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী অদ্য ২২/১২/২০১৮খ্রি: চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি তার নেতা-কর্মী ও বাড়ী-ঘরে নৌকার প্রার্থীর সমর্থক কর্তৃক হামলা এবং ঘটনার বিষয়ে বাঁশখালী থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ তাকে থানা থেকে বের করে দিয়েছে অভিযোগ আনয়ন করত: বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেট্রনিক মিডিয়ায় “থানা থেকে বের করে দিয়েছে পুলিশ” শীর্ষক বিবৃতি প্রদান করেন। ইন্টারনেট সংযোগ না থাকায় বিবৃতিটি বিলম্বে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী সংবাদ সম্মেলনে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সত্য নয়।

গত ২১/১২/২০১৮খ্রি: ১৬:০০ ঘটিকায় বাঁশখালী উপজেলার চাম্বল বাজারে এক পথসভার আয়োজন করে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী। পথসভায় মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী নেতা-কর্মীসহ সদলবলে চাম্বল বাজারে যাওয়ার পথে চাম্বল বাজার সিকদারের দোকান এলাকায় গণসংযোগে লিপ্ত আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী’র নেতা-কর্মীদের কথা কাঁটাকাটি হয়। এর জের ধরে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী জনাব মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী’র উচ্ছৃঙ্খল নেতা-কর্মীরা বৈলছড়ি বাজারে অবস্থিত আওয়ামীলীগ প্রার্থীর নির্বাচনী অফিসে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে। পরবর্তীতে জাতীয় পার্টির উচ্ছৃংখল নেতা-কর্মীরা চট্টগ্রাম-বাঁশখালী সড়কের চেচুরিয়া বাজারে সড়ক অবরোধ করে, রাস্তায় টায়ার পুড়িয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে, যাত্রীবাহী গাড়ি ভাংচুর করে, বৈদ্যুতিক পিলারের ক্ষতি সাধনসহ বাজারের বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও বাজারে থাকা সিসি ক্যামেরা ভাংচুর করে। সংবাদের ভিত্তিতে বাঁশখালী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীরা পুলিশ’কে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে এবং ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এছাড়া মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরীর ব্যক্তিগত দেহরক্ষীও তাঁর অস্ত্র দ্বারা পুলিশকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। জনসাধারণের নিরাপত্তা বিধান, জান-মাল রক্ষা, সরকারী অস্ত্র-গুলি ও আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুঁড়লে উত্তেজিত জনতা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীদের ছোড়া গুলিতে পিএসআই/মোজাম্মেল খান, এসআই/সুজন সিকদার, এসআই/ফারুক উদ্দিন, কং/১০৪৯ রুবেল কং/২২৫০ শরীফ এবং কং/৯৬৩ বাছেদ আলম গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর জখম প্রাপ্ত হয়।

জাতীয় পার্টির নেতা মাহমুদুল ইসলাম চৌধরী এর নেতা-কর্মীরা এ ঘটনায় জড়িত এবং ঘটনার বিষয়ে এজাহার দায়ের করতে তিনি বাঁশখালী থানায় গমন করেননি। মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী’কে পুলিশ কর্তৃক থানা হতে বের করে দেয়ার তথ্যটি সঠিক নয়। এছাড়া এ ঘটনায় জাতীয় পার্টির কোন নেতা-কর্মী’কে বাঁশখালী থানা পুলিশ গ্রেফতার করেনি। অন্যদিকে সরকার দলীয় সমর্থক কর্তৃক মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী’র বাড়ী ঘেরাও এবং গুলি বর্ষণের ঘটনা সত্য নয়। সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত সকল অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। তিনি নির্বাচনী এলাকায় অস্থিরতা সৃষ্টির জন্য দূরভীসন্ধিমূলকভাবে অর্ন্তঘাতমূলক কাজ করেছেন এবং মিথ্যা সংবাদ সরবরাহের মাধ্যমে মূল ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার অপচেষ্টা করছেন। এ ধরণের সংবাদ প্রকাশে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ তীব্র প্রতিবাদ জানানোসহ সকল সংবাদ মাধ্যম’কে যাচাই-বাচাই করত: সঠিক সংবাদ পরিবেশনের অনুরোধ জানিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলা বিশেষ শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও মিডিয়া জনসংযোগ কর্মকর্তা মহিউদ্দিন মাহমুদ সোহেল।

ট্যাগ :



চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মোঃ আব্দুল আজিজ
ডিএমডি : মোঃ আরমান তারেক

বার্তা কক্ষ :

ঢাকা অফিস : ৩৭৩, দিলু রোড, মগবাজার, ঢাকা-১২১৭।
চট্টগ্রাম অফিস : সায়মা আবুল স্কয়ার,বড়পুল,হালিশহর,চট্টগ্রাম।
ফোন : ০১৩০৬৭৩৪২৪০
মেইল : channelkornofuli.org@gmail.com